Search
Close this search box.

কোরিয়ান সৌন্দর্যের রহস্য গ্লাস স্কিন রুটিন

গ্লাস স্কিন বা কাঁচের ত্বক। নিশ্চয়ই ভাবছেন এ আবার কী কথা!

এই ‘গ্লাস স্কিন’ হলো কোরিয়ান সেনসেশন যা ইতিমধ্যেই রুপচর্চার দুনিয়ায় সুনামি তুলে দিয়েছে!

দেখা গেছে কোরিয়ান সুন্দরীরা কীভাবে যেন কাঁচের মতো ঝকঝকে ত্বকের অধিকারী হয়ে উঠছেন! এ অবশ্য নতুন কিছু নয়।

কোরিয়ান মেয়েরা বরাবরই নতুন কিছু করতে ভালবাসেন। এর আগেও তারা নানারকম নতুন মেকআপের পদ্ধতি আবিষ্কার করে গোটা পৃথিবীকে চমকেই দিয়েছেন।

এই গ্লাস স্কিন রুটিন তারই মধ্যে একটা সংযোজন আর কী।

গ্লাস স্কিন কনসেপ্টটা মূলত কী?

‘গ্লাস স্কিন’ যে আদতে কী, তার রহস্য কিন্তু তার নামের মধ্যেই বলে দেওয়া আছে। মানে কিছুই না, কাঁচের মতো ঝকঝকে, নিদাগ চামড়া।

যে চামড়া হবে স্মুদ, শাইনি, এবং ত্বককে এমনভাবেই আর্দ্র করবে, যাতে আপনার চামড়া যেন এক্কেবারে ময়েশ্চারাইজড আর কাঁচের মতোই স্বচ্ছ লাগে।

বিশেষজ্ঞরা যা বলেন এই ব্যাপারে  

গ্লাস স্কিন এমন একটা ধারণা, যে ধারণা বলে কাঁচের মতোই স্বচ্ছ ত্বকের কথা! এক্কেবারে কাঁচের মতো ত্বক পাওয়া তো আর সত্যিকারের সম্ভব না।

কিন্তু আমরা চেষ্টা করলে তো তার কাছাকাছি একটা জিনিস পেতেই পারি।

কোরিয়ার প্রত্যেক মেয়েরই নাকি স্বপ্ন থাকে এই কাঁচের মতোই ত্বকের অধিকারী হয়ে উঠতে। এটাই তাদের কাছে শ্রেষ্ঠত্বের মাপকাঠি!

আর এই গ্লাস স্কিন নাকি কোরিয়ার লোকেদের কাছে তারুণ্যের প্রতীক। যে যত বেশী কাঁচের মতো উজ্জ্বল আর ঝকঝকে ত্বকের অধিকারী, সে নাকি ততই তরুণ!

এটা কি আদৌ আদৌ সম্ভব? 

কিন্তু সে যাই হোক, আর যে বিশেষজ্ঞ যাই বলে থাকুন, আপনি নিশ্চয়ই অবাক হচ্ছেন? ভাবছেন কাঁচের মতো পরিষ্কার স্কিন! এও সম্ভব!

আর এদিকে আপনি তো কত্ত মেকআপ, বিউটি টিপসই ব্যবহার করেছেন।কত অজস্র সময় নষ্ট করে ফেলছেন ।

কত প্রডাক্ট ট্রাই করছেন সুন্দর দাগহীন,উজ্জ্বল চামড়ার অবসেশনে! তাও তো পাননি কাঁচের মতো চামড়া!

আসলে যতই যা কিছু করে থাকুন না কেন, আর যত দামী প্রোডাক্টই ব্যবহার করে থাকুন না কেন,

এটা তো নিশ্চয়ই মানবেন,যে কাঁচের মতো ঝকঝকে চামড়া পাওয়া সোজা ব্যাপার নয়।

এটা রাতারাতি হওয়াও সম্ভব নয়! এর জন্যে লাগে কঠোর অধ্যাবসায় আর দীর্ঘদিনের পরিচর্যা।

কীভাবে পেতে পারেন কাঁচের মতো স্কিন

এর জন্যে আপনাকে কিছু প্রোডাক্ট ব্যবহার করতেই হবে এবং নিয়ম করে একটা নির্দিষ্ট

স্কিন কেয়ার রুটিন মেনে চলতে হবে।

একবার যদি আপনি আপনার ত্বকের জন্যে সঠিক জিনিসগুলি বেছে ফেলতে পারেন।

যেগুলো আপনার ত্বকের যথার্থ বন্ধু হয়ে উঠতে পারবে, তাহলেই অর্ধেক কেল্লা ফতে।

সহজ ৮ ধাপে করুন গ্লাস স্কিন রুটিন

১/ ডাবল ক্লিনজিং করা

২/ এক্সফোলিয়েট করা

৩/ টোনার এর ব্যবহার

৪/ এসেন্সিয়াল অয়েল এর ব্যবহার

৫/ ফেসিয়াল সিরাম এর ব্যবহার

৬/ ত্বক ময়েশ্চারাইজ করা

৭/ সানস্ক্রিন ব্যবহার করা

৮/ ত্বকের সাথে মানানসই ফেস মাস্ক ব্যবহার করা

শুরু করুন আজই 

এক্সফোলিয়েট আর হাইড্রেট— কাঁচের মতো ঝকঝকে আর ফ্ললেস ত্বক পাবার এই নাকি গোপন রহস্য!

নিয়ম করে এক্সফোলিয়েটর দিয়ে আপনার ত্বককে পরিষ্কার করুন, যাতে ত্বকের মরা কোষ উঠে গিয়ে আপনার ত্বক চকচকে আর মসৃণ হয়ে ওঠে।

তারপর ভালো কোনো একটা হাইড্রেটিং সিরাম নিয়ে মুখে ভালো করে লাগান, দেখবেন মুখ ময়েশ্চারাইজডও হচ্ছে, আবার কাঁচের মতো মোলায়েমও হয়ে উঠছে!

তারপর সারারাত মুখে ওটা লাগিয়ে রাখুন। ব্যাস। এটাকেই আপনার বিউটি কেয়ারের মন্ত্র বানিয়ে ফেলুন।

আর সারাদিনের বিউটি রুটিনে অ্যাড করে ফেলুন। আর তারপর দেখবেন ম্যাজিক কাকে বলে!

তাহলে আর দেরী কেন? চেষ্টা করেই দেখুন— হয়তো কোরিয়ান মন্ত্রে আপনার ত্বক কাঁচের মতো না হলেও গোলাপের পাপড়ির মতো নরম আর মাখনের মতো মখমলি হয়ে উঠেছে!