Search
Close this search box.

চুল লম্বা ও মসৃণ করার প্রাকৃতিক উপাদান

সামান্য একটু পরিশ্রম দিলে আপনারও অমন সুন্দর চুল হতে পারে – তবে হ্যাঁ, যত্ন নেওয়াটা কিন্তু মাস্ট!

ভরসা রাখুন আপনার রান্নাঘরে থাকা উপাদানের উপর, আর একটু ধৈর্য ধরুন।

ম্যাজিক দেখে নিজেই অবাক হয়ে যাবেন!

হাতের কাছে যদি অ্যালোভেরা হেয়ার স্প্রে থাকে, তা হলেই আপনার অর্ধেক সমস্যা মিটে যাবে।

অ্যালোভেরার স্বচ্ছ শাঁসটুকু বের করে সঙ্গে মেশান জল।

মিশ্রণটা একটি স্প্রে বটলে ভরে রেখে হেয়ার স্প্রে হিসেবে ব্যবহার করুন ধোয়া, শুকনো করা চুলে।

যখনই চুল রুক্ষ হয়ে যাবে একবার স্প্রে করে নিতে হবে।

তবে চেষ্টা করুন এক সপ্তাহের মধ্যে শেষ করার।

যেহেতু কোনও প্রিজারভেটিভ দেওয়া নেই, তাই খারাপ হয়ে যেতে পারে।

সপ্তাহে একবার অ্যালোভেরা আর দইয়ের প্যাক চুলে লাগালেও কিন্তু চুল নরম, মসৃণ থাকে।

সপ্তাহে আপনি কতবার শ্যাম্পু করেন?

তার আগে প্রতিবার হট অয়েল ট্রিটমেন্ট করান চুলে।

উষ্ণ তেল মালিশ করার পর গরম জলে ভিজিয়ে নেওয়া একটি তোয়ালে নিংড়ে সব জল বের করে ফেলে দিন।

তোয়ালে দিয়ে চুলে ভাপ নিতে হবে। তার পর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগান।

প্রি এবং পোস্ট কন্ডিশনারের জোরেই চুল ক্রমশ মসৃণ হয়ে উঠবে।

ডিমের মাস্ক ট্রাই করে দেখুন সপ্তাহে অন্তত একবার।

ডিম, অলিভ অয়েল আর মধু মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিয়ে মাথায়, স্ক্যাল্পে লাগান।

আধঘণ্টা পর ধুয়ে নিন। নিয়মিত ব্যবহার করলে চুল মসৃণ হয়ে উঠবে।

তবে এ কথা ঠিক যে চুলে ডিম লাগালে মাথায় বিচ্ছিরি গন্ধ হয়।

সেটা তাড়ানোর জন্য শ্যাম্পুর পর অ্যাপেল সিডার ভিনেগার মেশানো জলে চুল ধুয়ে নিন ভালো করে।